সোমবার, ১৫ জুলাই, ২০২৪  |   ২৯ °সে

প্রকাশ : ০৪ জুলাই ২০২৪, ০৩:৩৩

সেই ছবি সরিয়ে নেওয়ার অনুরোধ অভিনেতা সিয়ামের

সেই ছবি সরিয়ে নেওয়ার অনুরোধ অভিনেতা সিয়ামের
অনলাইন ডেস্ক

লুসাই জনগোষ্ঠীর রাজার আমন্ত্রণে বছর তিনেক আগে সাজেকে ঘুরতে গিয়েছিলেন চিত্রনায়ক সিয়াম আহমেদ ও তার স্ত্রী শাম্মা রুশাফি অবন্তী। সেখানে বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেড়িয়েছেন, তাদের সংস্কৃতি, পরিবেশের সঙ্গে মিশে গেছেন এই দম্পতি।

তবে সম্প্রতি নেটদুনিয়ায় ভাইরাল হয়েছে সিয়াম ও তার স্ত্রীর সেসময়কার একটি ছবি। যেখানে তাদের দেখা গেছে পাহাড়ি একটি জনগোষ্ঠীর পোশাকে। সেই পোশাকে এই দম্পতিকে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয়েছে ‘পাংখোয়া’ জনগোষ্ঠীর সদস্য হিসেবে!

মূলত সেখান থেকেই বিপত্তির শুরু! কারণ সিয়াম-অবন্তীর পোশাকটি মূলত লুসাই সম্প্রদায়ের। যে কারণে বিতর্কের মুখে পড়েছে এই দম্পতি। বিষয়টি নিয়ে মঙ্গলবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মুখ খুলেছেন সিয়াম। পরিষ্কার করেছেন স্পষ্ট তথ্য।

ছবিটি প্রকাশ করে ফেসবুকে এই অভিনেতা লিখেছেন, ‘লুসাই জনগোষ্ঠীর সম্মানিত রাজার আমন্ত্রণে বছর তিনেক আগে সাজেকে ঘুরতে গিয়েছিলাম অবন্তীকে নিয়ে। তাদের সংস্কৃতি, কৃষ্টি, পরিবেশ ঘুরে দেখেছিলাম। তাদের ঐতিহ্যবাহী পোশাক পরেছি, সবার আতিথেয়তায় মুগ্ধ হয়েছিলাম সেবার।’

ভাইরাল হওয়া ছবিতে লক্ষ্য করা গেছে, রাঙামাটি অঞ্চলে কাপ্তাই ব্যাটালিয়নের (৪১ বিজিবি) সাঁটানো একটি বিলবোর্ড সেটি। যেখানে পাহাড়ি আদিবাসী বিভিন্ন সম্প্রদায়ের পরিচিতি তুলে ধরা হয়েছে। কিন্তু সেখানে ভুল হলো পাংখোয়া সম্প্রদায়ের বিষয়টি। কারণ সিয়াম-অবন্তীর ছবিটি মূলত লুসাই জনগোষ্ঠীর।

ভুল সংশোধন করার আবেদন জানিয়ে অভিনেতা লেখেন, ‘নিউজফিডে বেশ কয়েক জায়গায় দেখলাম, আমার আর অবন্তীর এই ছবিটি একটি সাইনবোর্ডে ব্যবহৃত হচ্ছে। সেখানে আমাদেরকে পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়েছে পাংখোয়া জনগোষ্ঠীর সদস্য হিসেবে। আমরা এতে বিব্রত হয়েছি, কারণ এর মাধ্যমে পাংখোয়া জনগোষ্ঠীকে হেয় করা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বিনীতভাবে অনুরোধ করব, অবিলম্বে আমাদের ছবিটি সরিয়ে নেয়ার জন্য।’

সিয়াম আরও উল্লেখ করেন, ‘ঘুরতে গিয়েছিলাম পরিবারকে নিয়ে। সেই ছবিটি নিয়ে অনেক জায়গায় দেখলাম নানান রকমের ট্রল হচ্ছে। ভেবেছিলাম অন্য আরও অনেকবারের মতো এবারও এড়িয়ে যাব। কিন্তু ভাবলাম কিছু বলা উচিত।’

তিনি আরও বলেন, ‘ট্রল আমরা অবশ্যই করব, মিম আমরা অবশ্যই বানাব—পপ কালচারের অংশ হওয়াটাই স্বাভাবিক। কিন্তু কীসে কাউকে অসম্মান করা হচ্ছে, একটি সম্প্রদায়কে ছোট করা হচ্ছে—সেই বোধ থাকাটাও জরুরি। যে তারুণ্যকে আমি প্রতিনিধিত্ব করি, সেই তারুণ্যের কাছে এই সেনসিবিলিটি তো প্রত্যাশা করতেই পারি।’

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়